ভুড়ি কমাতে চাইলে মেনে চলুন ৬ টিপস

জিমে যাচ্ছেন সপ্তাহের পর সপ্তাহ। খাওয়া দাওয়ার ওপর নিয়ন্ত্রণও এনেছেন। এরপরেও ভুঁড়ি কমছে না। বা যেমনটি চাইছেন তেমনটি হচ্ছে না আপনার পেট।

কেন এমন হচ্ছে? জেনে নিন-

১. আপনি কেবল ক্রাঞ্চসের ওপর জোর দিয়েছেন: অনেকেই এই ভুলটি করেন। ভাবেন যত ক্রাঞ্চ করবেন, ততই কমবে পেট। আসলে ক্রাঞ্চ–র উপকারিতা ফুলিয়ে ফাঁপিয়ে দেখানো হয়। অতটা উপকারি নয় এই ব্যায়াম।

২. পেটের পেশিতে (টি ভি এ) চাপ না পড়া: ভুঁড়ি কমাতে চাইলে এই পেশিকে অবহেলা করবেন না। এই পেশির ব্যায়াম করতে হলে কেবল একটি ব্যায়াম নয়, একাধিক ব্যায়াম করতে হবে। যেমন সাইকেল চালাতে হবে এবং একই সঙ্গে ডাম্বেল তুলতে হবে। পেলভিক পেশির ব্যায়াম করতে হবে।

৩. পেট কমাতে গিয়ে পিঠের ব্যায়ামকে অবহেলা করা: নির্বিচারে পেটের ব্যায়াম করতে গিয়ে অনেকেই পিঠের ব্যায়াম করেন না। এরফলে পিঠের দিকে আহত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

৪. ঠিকঠাক খাওয়া দাওয়া না করা: কথায় বলে পেট তৈরি হয় রান্না ঘরে। কারও খাওয়া দাওয়া যদি তার পরিশ্রমের অনুকূল না হয় তবে পেট কমানো যাবে না। উচ্চ প্রোটিনযুক্ত খাবার, ফাইবার রয়েছে এমন খাবার, অনেক পানি খাওয়ার মধ্যে লুকিয়ে রয়েছে ভুঁড়ি কমানোর চাবিকাঠি।

৫. ডাম্বেল নিয়ে ওঠবোস করা: এই ব্যায়াম অনেকেই করতে চান না বলে জিম প্রশিক্ষকরাও তা দেখাতে চান না।

৬. সঠিক ঘুম: রাতেও অনেকে গ্যাজেট নিয়ে পড়ে থাকেন। তাই সময়ে ঘুম আসতে চায় না। তবে চর্বি ঝরাতে গেলে ঠিক ঘুম জরুরি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *